ছোটগল্প ৪১ – প্রফেসর শঙ্কু – নকুড়বাবু ও এল ডোরাডো / Short Story 41 – Professor Shanku – Nakurbabu O El Dorado (Nakurbabu and El Dorado)

Shanku-Nokurbabu O El Doradoপিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Professor Shanku-Nakurbabu O El Dorado

প্রফেসর শঙ্কুর গল্প – নকুড়বাবু ও এল ডোরাডো – সত্যজিৎ রায়

প্রফেসর শঙ্কুর গল্পগুলোর চরিত্রদের মধ্যে যদি নকুড়চন্দ্র বিশ্বাস সাথে পাঠকদের পরিচয় না হয়, তাহলে এই সাইটে প্রফেসর শঙ্কুর গল্পগুলোর তালিকাটি অসম্পূর্ণই থেকে যাবে। নকুড়বাবুর সম্পর্কে বেশি কিছু বললে গল্পের মজা নষ্ট হয়ে যাবে, তবে এটুকু বলব যে গল্পটির শুরু হয় তার অতীন্দ্রীয় আর সম্মোহনী ক্ষমতাকে ঘিরে, আর শেষ হয় ব্রাজিলের অ্যামাজন জঙ্গলের মাঝে এক কিংবদন্তির শহরে। টেলিপ্যাথি, সম্মোহন, এল ডোরাডো, অ্যানাকন্ডা, সোনার শহর – আরো অনেক কিছুই এক সূত্রে গাঁথা সত্যজিৎ রায়ের এই গল্পে।

Professor Shanku’s Stories – Nakurbabu O El Dorado (Nakurbabu and El Dorado) – Satyajit Ray

Of the characters in Professor Shanku’s adventures, Nakurchandra Biswas deserves a special mention. Of course, that needs to be done in its place, that is, in Nakurbabu O El Dorado. But without giving too much away, let me tell you that the story starts with Nakurbabu revealing his extrasensory and hypnotic powers, and ends in a fabled city in the Brazilian Amazon. Telepathy, hypnotism, El Dorado, Anaconda, City of Gold, and a lot more, threaded into a absorbing narrative by Satyajit Ray.

Shanku-Nokurbabu O El Dorado 2

 

Advertisements

ছোটগল্প ১৩ – বাতিকবাবু / Short Story 13 – Batikbabu (A Man of Strange Habits)

Batikbabuপিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Batikbabu

বাতিকবাবু – সত্যজিৎ রায়

ছুটিতে দার্জিলিং বেড়াতে গিয়ে গল্পের উত্তম পুরুষ (ফার্স্ট পারসন) এর সাথে বাতিকবাবু নামের এক অদ্ভুত ভদ্রলোকের সাথে পরিচয় হয়। বাতিকবাবুর কিছু অভ্যাস তার চারপাশের মানুষদের ব্যাঙ্গ উদ্রেক করলেও সময়ের সাথে সাথে তার মধ্যেকার একটি অতীন্দ্রীয় (এক্সট্রাসেন্সরি) ক্ষমতা আমাদের কাছে ক্রমশই স্পষ্ট হয়ে ওঠে, এবং গল্পটিকে নিয়ে যায় একটি রোমহর্ষক পরিণতির দিকে।

Batikbabu (A Man of Strange Habits) – Satyajit Ray

In this story, the narrator, who is on a vacation in Darjeeling, meets an eccentric man named Batikbabu. Although the man is much ridiculed by the locals for his habits, it soon becomes clear to us that Batikbabu’s eccentricity is due to a singular extrasensory perception – one that leads the story to a chilling end.