কবিতা ৬৭ – কপোতাক্ষ নদ / Poem 67 – Kapotakkha Nad (Kapotakkha River)

michael-madhusudan-datta-satoto-he-nad-2

আজ মাইকেল মধুসূদন দত্তের একটি কবিতা। এতদিন এই সাইটে যে বাংলা সাহিত্যের এই অমর কবির লেখা কেন তুলিনি, তার কোন স্পষ্ট ব্যাখ্যা আমার কাছে নেই – হয়তো একসময়কার মধুসূদনের মত আমিও বাংলাকে ভুলতে বসেছি, তাই। আজকের কবিতাটি তোলার কারণ অবশ্য জানা – জীবনের স্রোতে ভেসে ভেসে আমরা এককালের চেনা জগৎটা হতে কত দূরেই না সরে যাই। তেমনি সময়ে কি ফেলে আসা প্রিয়জন ও প্রিয় জায়গাগুলোর কথা মনে পড়ে না? বিগত ক’দিন ধরে কেন জানি বাড়ির পিছনের ছোট্ট নদীটার কথা মনে পড়ছে খুব – আর সেই পিছুটানের কথা যদি পংক্তির ভাষায় বলতে হয়, কপোতাক্ষ নদ  চাইতে আর্দ্র কবিতা আর কি হতে পারে? তাই পাঠকদের জন্যে সেটি তুলে দেওয়া।

Today, in a way of filling what has been a massive void in this site, a poem by Michael Madhusudan Dutta. The reason for the post is rather personal, however. When life keeps us far away from who or what we hold dearly in our hearts, and when the recurring passage of time rekindles their memories, how does it feel? In Kapotakkha Nad (Kapotaksha River) we get to know the feeling – of missing the little river each of us knows back home.

কপোতাক্ষ নদ

সতত, হে নদ, তুমি পড় মোর মনে
সতত তোমার কথা ভাবি এ বিরলে;
সতত (যেমতি লোক নিশার স্বপনে
শোনে মায়া- মন্ত্রধ্বনি) তব কলকলে
জুড়াই এ কান আমি ভ্রান্তির ছলনে।
বহু দেশ দেখিয়াছি বহু নদ-দলে,
কিন্তু এ স্নেহের তৃষ্ণা মিটে কার জলে?
দুগ্ধ-স্রোতোরূপী তুমি জন্মভূমি-স্তনে।

আর কি হে হবে দেখা?- যত দিন যাবে,
প্রজারূপে রাজরূপ সাগরেরে দিতে
বারি-রুপ কর তুমি; এ মিনতি, গাবে
বঙ্গজ জনের কানে, সখে, সখা-রীতে
নাম তার, এ প্রবাসে মজি প্রেম-ভাবে
লইছে যে নাম তব বঙ্গের সংগীতে।

– মাইকেল মধুসূদন দত্ত

Advertisements

কবিতা ৫৬ – মনে পড়া / Poem 56 – Mone Pora (I Cannot Remember My Mother)

Rabindranath Thakur-Ma Ke Amar

আজ রবিঠাকুরের আরেকটি কবিতা – পৃথিবীর অগোচরে একাকী মুহূর্তগুলোতে বয়সের মুখোশটা খুলে পড়ে ভিতরের ছোট্ট খোকা/খুকিটি যখন বেরিয়ে আসতে চায়, সেই মুহূর্তগুলোর জন্য।

A poem by Rabindranath Thakur, for the moments when it feels as if the little boys and girls within us have been made to grow up much sooner than they would have liked.

মনে পড়া 

মাকে আমার পড়ে না মনে।
শুধু কখন খেলতে গিয়ে
হঠাৎ অকারণে
একটা কী সুর গুনগুনিয়ে
কানে আমার বাজে,
মায়ের কথা মিলায় যেন
আমার খেলার মাঝে।
মা বুঝি গান গাইত, আমার
দোলনা ঠেলে ঠেলে;
মা গিয়েছে, যেতে যেতে
গানটি গেছে ফেলে।
মাকে আমার পড়ে না মনে।
শুধু যখন আশ্বিনেতে
ভোরে শিউলিবনে
শিশির-ভেজা হাওয়া বেয়ে
ফুলের গন্ধ আসে,
তখন কেন মায়ের কথা
আমার মনে ভাসে?
কবে বুঝি আনত মা সেই
ফুলের সাজি বয়ে,
পুজোর গন্ধ আসে যে তাই
মায়ের গন্ধ হয়ে।
মাকে আমার পড়ে না মনে।
শুধু যখন বসি গিয়ে
শোবার ঘরের কোণে;
জানলা থেকে তাকাই দূরে
নীল আকাশের দিকে
মনে হয়, মা আমার পানে
চাইছে অনিমিখে।
কোলের ‘পরে ধরে কবে
দেখত আমায় চেয়ে,
সেই চাউনি রেখে গেছে
সারা আকাশ ছেয়ে।

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (শিশু ভোলানাথ  হতে সংগ্রহীত)

Mone Pora (I Cannot Remember My Mother)
(Translated by the poet himself)

I cannot remember my mother,
only sometime in the midst of my play
a tune seems to hover over my playthings,
the tune of some song that she used to hum
while rocking my cradle.
I cannot remember my mother,
but when in the early autumn morning
the smell of the shiuli flowers floats in the air,
the scent of the morning service in the temple
comes to me as the scent of my mother.
I cannot remember my mother,
only when from my bedroom window I send my eyes
into the blue of the distant sky,
I feel that the stillness of my mother’s gaze on my face
has spread all over the sky.

– Rabindranath Thakur (Collected from Shishu Bholanath)

ছোটগল্প ৬৪ – প্রফেসর শঙ্কু – ডঃ শেরিং এর স্মরণশক্তি / Short Story 64 – Professor Shanku – Dr. Sherring er Smaranshakti (The Remembrance of Dr. Sherring)

Satyajit Ray-Professor Shanku-Dr Shering er Smaranshakti 1পিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Professor Shanku-Dr Shering er Smaranshakti

প্রফেসর শঙ্কুর গল্প – ডঃ শেরিং এর স্মরণশক্তি – সত্যজিৎ রায়

প্রফেসর শঙ্কুর এই গল্পটির পটভূমি সুইটজারল্যান্ড। শঙ্কুর সেখানে যাওয়ার কারণ দুটো – এক, ইউরোপের বৈজ্ঞানিকমহলের সামনে তার সদ্য আবিস্কৃত স্মরণশক্তি বাড়ানোর যন্ত্র রিমেমব্রেনের কার্যকরিতার প্রমাণ দেওয়া, আর দুই, রহস্যজনক সড়ক দুর্ঘটনায় স্মৃতিশক্তি হারানো এক বৈজ্ঞানিকের হারানো স্মৃতি ফিরিয়ে আনা। স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলার আগে ডঃ শেরিং একটি গোপন বিষয় নিয়ে গবেষণা করছিলেন, যা শেষ হওয়ার আগেই তিনি আর সেই গবেষণায় তার সহকর্মী ডঃ লুবিন পাহাড়ের গায়ে দুর্ঘটনাটির শিকার হন। দুর্ঘটনায় শেরিং বেচে গেলেও লুবিন মারা যান, আর গবেষণার কাগজপত্রসমেত তাদের গাড়িচালক নিশ্চিহ্ন হয়ে যান। শঙ্কুর যন্ত্র শেরিং এর উপর কাজ করলেও দুর্ঘটনার কারণ আর কাগজগুলোর হদিস সম্বন্ধে তিনি কিছুই জানাতে পারেন না। শঙ্কুর সন্দেহ হয়, যে বৈজ্ঞানিকদের এই পরিণতির কারণ নিছক দুর্ঘটনা নয়, যদিও আসল ঘটনার অনেকটুকুই তখনো ঘটতে বাকি।

Professor Shanku’s Stories – The Remembrance of Dr. Shering – Satyajit Ray

In this story, Shanku finds himself in Switzerland in an attempt to recover the memories of a certain Dr. Sherring, who had been working on a top secret project before losing his memory in a traffic accident. While Dr. Sherring had survived, his co-worker on the project, Dr. Lubin, did not. More perplexingly, however, no body of the driver of their car is found, as are the documents of their research. While Shanku’s latest invention, the remembrain, succeeds in restoring Dr. Sherring’s memory, he fails to shed any light on the accident. Salvaging the documents seems to be an impossibility, until Shanku realizes that the accident , after all, might not have been one.

Satyajit Ray-Professor Shanku-Dr Shering er Smaranshakti 2