ছোটগল্প ৬৮ – প্রফেসর শঙ্কু ও আদিম মানুষ / Short Story 68 – Professor Shanku O Adim Manush (Professor Shankur and the Homo afarensis)

Satyajit Ray-Professor Shanku O Adim Manush

পিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Professor Shanku O Adim Manush

প্রফেসর শঙ্কুর গল্প – শঙ্কু ও আদিম মানুষ – সত্যজিৎ রায়

শঙ্কুর এই গল্পের পূর্বকথা হাইনরিখ ক্লাইন নামের একজন বিখ্যাত নৃতত্ত্ববিদের অ্যামাজন অভিযান। অ্যামাজনে ভ্রমণকালে ক্লাইন এমন এক উপজাতির সন্ধান পান, যা তার মতে মানুষ ত্রিশ লক্ষ বছর আগে যে অবস্থায় ছিল, সে অবস্থায়ই থেকে গেছে। শুধু তাই নয়, ক্লাইন সে উপজাতির থেকে একজনকে ফাঁদে ধরে তাঁর সাথে জার্মানি নিয়ে আসেন। স্বভাবতই ক্লাইনের খ্যাতি বিশ্বজোড়া ছড়িয়ে পরে, আর তার কিছুদিন পরেই শঙ্কু ক্লাইনের কাছ থেকে সেই উপজাতীয় নমুনাটিকে দেখতে যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র পান। শঙ্কু সে সময় ক্রমবিবর্তনের গতি বাড়ানোর একটি ঔষধ তৈরী করার চেষ্টা করছিলেন। তাই ক্লাইনের চিঠি পেয়ে শঙ্কু মানুষের আদি এবং ভবিষ্যৎ চেহারার দুটোই একসাথে দেখা পাওয়ার সম্ভাবনা দেখে ক্লাইনের কাছে ঘুরতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। অবশ্য শঙ্কু মনে তখনো এটা ছিলনা যে তার ওষুধের অন্য একটি প্রয়োগ থাকতে পারে।

Professor Shanku’s Stories – Shanku O Adim Manush (Shanku and Homo afarensis) – Satyajit Ray

This story of Professor Shanku starts when Heinrich Klein, a German anthropologist, comes across what he conjectures to be a population of Homo afarensis in the Amazon, and manages to capture a specimen and bring him to Germany. International fame soon follows, and he invites Shanku to come and observe the ape. At the time, Shanku had been working on a drug that accelerates evolution and tested it successfully. Foreseeing a rare opportunity of witnessing the early and advanced forms of humans side by side, he accepts the invitation, realizing little that his drug may have uses that he had not foreseen.

ছোটগল্প ৩২ – খগম / Short Story 32 – Khagam

Khagam

পিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Khagam

খগম – সত্যজিৎ রায়

খগম সত্যজিৎ রায়ের সেরা ভয়ের গল্পগুলোর মধ্যে একটি। ভারতের এক প্রত্যন্ত কোণে ছুটি কাটাতে গিয়ে গল্পের উত্তম পুরুষের (বর্ণনাকারী) সাথে ধুর্জটিবাবু নামের এক বাঙ্গালী ভদ্রলোকের পরিচয় ঘটে। সেখানে থাকাবস্থায় স্থানীয় লোকজনদের কাছে ইমলিবাবা নামের এক সন্ন্যাসী আর তার পোষা সাপের কথা শুনে তারা তাকে দেখতে যান। সাধু-সন্ন্যাসীদের উপর ধুর্জটিবাবুর আগে থেকেই সন্দেহ ছিল, আর তার উপর সাধুবাবার সাথে দেখা করার সময় এমন একটি ঘটনা ঘটে, যাতে ধুর্জটিবাবুর উল্লাস আর অবিশ্বাস আরও পাকা হয়। কিন্তু সেই ঘটনার রাতেই ধুর্জটিবাবুর ব্যবহার রহস্যজনকভাবে বদলে যায়… আর তারপর ঘটনাবলী এমনভাবে অতিপ্রাকৃতের দিকে মোড় নেয়, যে তা আমাদেরকে ভয়ে-বিস্ময়ে বাকরূদ্ধ করে দেয়।

শিড়দাঁড়া বেয়ে শিহরণ খেলে যাওয়ার জন্য কটি লাইন –

‘সাপের ভাষা সাপের শিস, ফিস্‌ ফিস্‌ ফিস্‌ ফিস্‌!
বালকিষণের বিষম বিষ, ফিস্‌ ফিস্‌ ফিস্‌ ফিস্‌!’

Khagam – Satyajit Ray

Of the scary stories written by Satyajit Ray, Khagam is certainly one of the most spine-chilling. The story starts innocuously enough, with the narrator coming across a fellow Bangalee gentlemen while traveling in a remote part of India. After hearing from the locals about a supposed ascetic and his pet snake, the two decide to pay a visit, the narrator to satisfy his curiosity, and the acquaintance to solidify his doubt. The visit goes much to the latter’s satisfaction, but that night, things take a terrifyingly supernatural turn, leaving the narrator – and us – astonished and terrified.

ছোটগল্প ২৩ – মৃগাঙ্কবাবুর ঘটনা / Short Story 23 – Mrigankababur Ghatana (The Metamorphosis of Mr. Mriganka)

Mriganka Babuপিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Mrigankababur Ghatana

মৃগাঙ্কবাবুর ঘটনা – সত্যজিৎ রায়

সত্যজিৎ রায়ের আরেকটি গল্প – একজন মানুষের রহস্যময় বিবর্তন নিয়ে।  ‘মৃগাঙ্কবাবুর ঘটনা’কে সায়েন্স ফিকশন বলা যেতে পারে, তবে গল্পটির চরিত্রগুলো আমাদের পারিপার্শ্বিক হওয়ায় পাঠকের শিড়দাঁড়া বেয়ে ওঠা শিহরণগুলো একটু বেশিই বাস্তব হয়ে ঠেকে।

Mrigankababur Ghatana (The Metamorphosis of Mr. Mriganka) – Satyajit Ray

This time, a story about the mysterious transformation of a man. The story is a science fiction of sorts, but since the characters happen to be just like the people around us, the chills experienced by the reader arise from fears that are very much present, rather than from visions of the future or the past.