ছোটগল্প ৬৯ – প্রফেসর শঙ্কু ও ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইন / Short Story 69 – Professor Shanku – Professor Shanku O Frankenstein

Satyajit Ray-Professor Shanku-Frankensteinপিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Professor Shanku-Shanku O Frankenstein

প্রফেসর শঙ্কুর গল্প – শঙ্কু ও ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইন – সত্যজিৎ রায়

আরেক ডোজ শঙ্কু, আর এবারে ভূমিকার বদলে গল্পের মাঝখানের দিকে শঙ্কুর লেখা একটা দিনলিপি। গল্পের নামটা পড়ে পাঠকের ধারণা অন্যরকম হতে পারে, তাই এটুকু বলি – এ গল্পের অনেকখানিই কিন্তু নাৎসিদেরকে ঘিরে।

১৭ জুন

আজ সন্ডার্সের আরেকটা চিঠি। অত্যন্ত জরুরি খবর। চিঠিটা এই –

প্রিয় শঙ্কু,

ডাঃ টমাস গিলেটের নাম শুনেছ নিশ্চয়ই। অত বড় ক্যান্সারবিশেষজ্ঞ পৃথিবীর আর কেউ ছিল না। ছিল না বলছি এই কারণে যে, আজ সকার সাতটায় হার্ট অ্যাটাকে গিলেটের মৃত্যু হয়েছে। সে ক্যান্সারের একটি অব্যর্থ ওষুধ তৈরি করতে চলেছিল। আমায় গত মাসেই বলেছিল, ‘আরেকটা মাস – তারপরে আর ক্যান্সারের ভয় থাকবে না।’ কিন্তু সেই ওষুধ তৈরি করার আগেই সে চলে গেল। আর চেয়ে বড় দুর্ঘটনা আর হতে পারে না। আমি ক্রোলকেও লিখেছি। আমার ইচ্ছা – ইনগোলস্ট্যাটে গিয়ে জুলিয়ার ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইনকে বলে তার প্রপিতামহের ডায়রির সাহায্যে গিলেটকে আবার বাঁচিয়ে তোলা। তুমি কি মনে কর পত্রপাঠে জানাও। গিলেটের মৃতদেহ আমি কোল্ড স্টোরেজে রাখতে বলে দিয়েছি। এখানে ডাক্তারিমহলকে আমার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছি। তারা সকলেই রাজি আছে।

ইতি

জেরেমি সন্ডার্স

আমি সন্ডার্সকে ইনগোলস্ট্যাট যাচ্ছি বলে জানিয়ে দিয়েছি। পরশুই রওনা। এবারে নিজের খরচেই যেতে হবে। কিন্তু কাজটা সফল হলে খরচের দিকটা সম্পূর্ণ অগ্রাহ্য করা চলবে।

Professor Shanku’s Stories – Shanku O Frankenstein – Satyajit Ray

When it comes to Professor Shanku’s stories, overdose is just not a thing. So here is another of his adventures. You may know a thing or two about Frankenstein, but this story has a bit more than what you may have read or heard, for instance, neo-nazis, and the Professor himself.

ছোটগল্প ৩৭ – প্রফেসর শঙ্কু – হিপনোজেন / Short Story 37 – Professor Shanku – Hypnogen

Shanku-Hypnogen

পিডিএফ লিঙ্ক / PDF Link: Satyajit Ray-Professor Shanku-Hypnogen

প্রফেসর শঙ্কুর গল্প – হিপনোজেন – সত্যজিৎ রায়

এবার সত্যজিৎ রায়ের লেখা একটি বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী – প্রফেসর শঙ্কু নানা অভিযানের ফাঁকে যখন তাঁর গিরিডির বাড়িতে, তখন নরওয়ের থেকে তার কাছে একটি রহস্যজনক টেলিগ্রাম আসে, যাতে জনৈক আলেকজান্ডার ক্রাগ শঙ্কুকে তার নিজের বাড়িতে আমন্ত্রণ জানান। কৌতুহলী শঙ্কু খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন যে এককালে আলেকজান্ডার ক্রাগ নামের এক হীরের খনির মালিক থাকলেও তিনি ১৯১৩ সালেই মারা যান। কিন্তু খটকা লাগলেও শঙ্কু যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন, কারণ টেলিগ্রামে যাতায়াতের সমস্ত খরচ বহন করার প্রতিশ্রুতি ছাড়া এও লেখা ছিল, যে ক্রাগের বাসস্থানেই শঙ্কুর সাথে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ বৈজ্ঞানিকের দেখা হতে চলেছে।

Professor Shanku’s Stories – Hypnogen – Satyajit Ray

This time, another of Professor Shaku’s adventures – while in Giridi between his expeditions, the Professor receives a mysterious telegram bearing an invitation form a certain Norwegian named Alexandar Krag. Curious, Professor Shanku decides to look him up, and finds in an old who’s who that the last widely known Alexandar Krag was a diamond mine owner who had died in 1913. However, Shanku still decides to go, as besides the guaranteed reimbursement, Mr. Krag also mentions that he would introduce the world’s greatest scientist to the Professor at his residence.